শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০৫ অপরাহ্ন

“আশীর্বাদই কি তবে বিপর্যয়ের কারন হতে চলেছে “

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪২৭ Time View

 

👩স্টাফ রিপোর্টার: তানজিলা আক্তার সারা
🕒তারিখ:১১ জানুয়ারি ২০২১

 

স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে গিয়ে পরিবেশ বিপর্যয় ডেকে আনছেন না তো?,,,

বিশ্ব জুড়ে করোনা মহামারীর প্রকপে পুরো মানবকূল যখন কাবু,তখন স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ব্যবহৃত হাতিয়ার – মাস্ক, গ্লাভস বা পিপিই ইত্যাদি প্লাস্টিকের তৈরি এসব স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী কি কোন ভাবে পরিবেশের ক্ষতি করছে না?
ওয়েলসের ব্যাঙ্গর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্লাস্টিক গবেষক কেন্দ্রের প্রধান বলেছেন, “ভাইরাসের বিস্তার রোধ ও জীবন বাঁচাতে প্লাস্টিকের তৈরি স্বাস্থ্য সুরক্ষা পন্য গুলো (মাস্ক, গ্লাভস ইত্যাদি) গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার হলেও মহামারী দূষণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের পিছিয়ে দিচ্ছে।” অসচেতন মানুষ যত্রতত্র সার্জিক্যাল মাস্ক, গ্লাভস ইত্যাদি ফেলে দিচ্ছে যাতে করে পরিবেশ দূষণের পরিমানটা ও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

NHS (National Health Service) প্রতিবছর প্রায় ১,৩৩,০০০ টন প্লাস্টিকের নিষ্পত্তি করে,তবে এর ৫% পুনঃরুদ্ধার হয়।

সম্প্রতি প্রকাশিত “নেট জোন” নামে ন্যাশনাল হেল্থ সার্ভিস (এনএইচএস) ডকুমেন্ট প্রকাশিত করে,যেখানে তারা জানায় ইংল্যান্ডের মোট কার্বন পদচিহ্নের ৪% এর জন্য NHS দায়ী। NHS স্বাস্থ্যসেবার বিশাল কার্বন পদচিহ্ন বা বর্জ্য উৎপাদিত পওয়াকে স্বীকৃতি দেয়,যার প্রায় ৬০% পন্য ও পরিবেশবাদি সংগ্রহ থেকে প্রাপ্ত।

Covid-19 বিস্তার লাভের সাথে সাথে আতঙ্ক ও বাড়ছে। সুরক্ষার পদক্ষেপ দ্রুত প্রয়োগ করা হয়েছিল। সুস্থতার জন্য হাতের স্বাস্থ্যবিধি, মুখমন্ডল এবং সামাজিক দূরত্বের মতো পদক্ষেপ গুলি প্রচার করা হয়েছিল।জনসাধারণের ব্যক্তিগত সচেতনতা ও বৃদ্ধি পেয়েছে।

তারপর, সুরক্ষার সামগ্রী থেকে সৃষ্ট বর্জ্য পরিবেশের ক্ষতিসাধনে যথেষ্ট, তার পরিমান মাত্রাতিরিক্ত হতে থাকে। এমনকি, Covid-19 এর জন্মভূমি, উহানের আন্তঃ হাসপাতাল গুলো ৪০ টনের বিপরীতে প্রতিদিন ২৪০ টনের বেশি বর্জ্য উৎপাদন করে যার বেশিরভাগ প্লাস্টিক বর্জ্য ছিল।

জ্বালানীর প্রতি টন বর্জ্যের জন্য গড়ে ১ টন কার্বনডাই-অক্সাইড ছাড়ে।মহামারী মোকাবেলায় যে পরিবেশগত ক্ষতি হয়েছে তা ইতিমধ্যে স্বীকৃতি পেয়েছে। আরও পরিবেশ বান্ধব উপায়ে কোভিড-১৯ সংযোজন করার প্রচেষ্টাকে NHS অগ্রনী ভূমিকা রাখতে পারে। NHS ইতিমধ্যে পিপিইর পরিবেশগত প্রভাব হ্রাস করতে কাজ শুরু করছে।

পলিপ্রোপালিন বর্জ্য পুনর্ব্যবহার করতে “স্টেরিমেল্ট” প্রযুক্তি ব্যবহারের উদ্যোগ গ্রহন করছে ওয়েলসের প্রািমারী কেয়ার। স্টেরিমেল্ট প্রযুক্তির মাধ্যামে একক ব্যবহৃত নিষ্পত্তি যোগ্য প্লাস্টিক পলিপ্রোপিন, পুনঃব্যবহার যোগ্য হয়ে ওঠে।এতে পরিবেশ দূষণ হতে রক্ষা পাচ্ছে।

হাসপাতাল গুলোর বাহিরে প্লাস্টিকের চিকিৎসা বর্জ্য এলোমেলো ভাবে পড়ে থাকা একটি ব্যাপক প্রচারিত চিত্র এবং সমুদ্র -সৈকত বা রাস্তাঘাটে যত্রতত্র ফেলে দেয়া ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী বা ওয়ানটাইম ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের অন্ধকার দিকটি বার বার চিত্রিত করে।

পরিশেষে, ব্যক্তিগত সচেতনতাই পারবে সৃষ্ট বিপর্জয় কে রোধ করতে।নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেতন হই সুরক্ষা সামগ্রী আশীর্বাদ থেকে ধ্বংসের কারন যেন না হয়।
ধন্যবাদ।🤍🌺

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102