শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
করোনায় মৃত্যুবরণ করা এক যুবকের শেষ কথাগুলো করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘নিওকোভ’ কি সবচেয়ে প্রাণঘাতী? করোনায় আক্রান্ত স্বাচিপ মহাসচিবের সুস্থতা কামনায় স্বানাপ মহাসচিব ইকবাল হোসেন সবুজ টিকা আবিষ্কার ও ব্যবহারের অনুমতির আগেই সরকার টিকা সংগ্রহের উদ্যোগ নেয় : মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ২৪ ঘন্টায় কোভিড-১৯ এ মৃত্যু ১৪, আক্রান্ত ১০ হাজার ৯০৬ জন কোভিড-১৯: দেশে ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ১৭ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কলেজ, দিনাজপুর অধ্যক্ষ তাজমিন আরার বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড় বাংলাদেশে নার্সেস এসোসিয়েশনের আহবায়ক কমিটি গঠন বাংলাদেশে নার্সেস এসোসিয়েশনের আহবায়ক কমিটি গঠন? বাংলাদেশে নার্সেস এসোসিয়েশনের আহবায়ক কমিটি গঠন? বাংলাদেশ হেলথ রির্পোটার্স ফোরামের কমিটি গঠন সভাপতি রাশেদ রাব্বি, সাধারণ সম্পাদক মাইনুল সোহেল

নার্সিং সমাজ বিনির্মাণের পথদ্রষ্টা – মোহাম্মদ আবদুল হাই পিএএ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১২ জুন, ২০২০
  • ৩১৭২ Time View

👤চীফ রিপোর্টারঃ আশিক মাহমুদ | 🕑১৩.০৬.২০২০ইং

একদা এক দীর্ঘস্থায়ী দূর্গ অবরোধের সময়ে, একজন নাম- না- জানা ব্যক্তি ছিল, আপনারা কি সেই ব্যক্তির গল্পগর্ত খননের কাহিনীটা জানেন ? তার মহানুভবতার কথা কি শুনবেন?

অন্ধকার রাতে একজন মুজাহিদ ধীর গতিতে হামাগুড়ি দিয়ে বের হল, দূর্গের দেয়ালটা পরিমাপ করল, রক্ষীদেরকে আক্রমণ করে তাদের সবাইকে মেরে ফেলল! আর দূর্গের দেয়ালে একটা গর্ত তৈরি করল যেটার মধ্য দিয়ে ইসলামিক সেনারা প্রবেশ করে দূর্গ দখল করে ফেলল। তো, সেনাপ্রধান কয়েকবার ডাক দিলেন,
“তোমাদের মধ্যে কে গর্ত খুঁড়েছিল?” কেউ এগিয়ে আসল না।

এক রাত্রিতে, আপাদমস্তক মোড়া ঘোড়সওয়ারি এক সৈন্য সেনাপ্রধানের তাঁবুতে ঢুকে বলল, “আপনি কি জানতে চান কে গর্তটা খুঁড়েছিল?”
সেনাপ্রধান উত্তর দিলঃ “হ্যাঁ।”
সৈন্যটি বলল, “আমি আপনাকে এক শর্তে বলব তা হলো আপনি কারো কাছে তার নাম বলতে পারবেন না, আর আপনি তাকে তার কাজের জন্য কোন পুরস্কার বা প্রতিদান দিতে পারবেন না।”

সেনাপ্রধান বিস্মিত হলো তার কথা শুনে এবং জানতে চাইলো সেই বীরের সম্পর্কে।

সৈন্যটি বলল, “আমিই সে যে ঐ গর্ত খনন করেছে,” এই বলে সে নিজের নাম প্রকাশ না করেই সেখান থেকে দ্রুত চলে গেল।

সৈন্যটির আন্তরিকতা ও মহানুভবতা দেখে সেনাপ্রধান বিমুগ্ধ হয়েছিল।

সেদিনের পর থেকে যতবারই সেনাপ্রধান দু’আ করার জন্য কিবলার দিকে মুখ করেছেন, তিনি বলতেনঃ “হে আল্লাহ, পুনরুত্থান দিবসে আমাকে তার সাথে জড়ো করো যে গর্ত খনন করেছিল।”

এই রকম আন্তরিক মানুষগুলো আর তাদের সুউচ্চ চেতনাগুলো দ্বারা সমাজকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করেছে। যেকোনো সমাজ বিনির্মাণে করতে তার অত্যাবশ্যকীয় স্তম্ভে আন্তরিকতা, সততা, সত্যনিষ্ঠতা, ইখলাস- এই বৈশিষ্ট্যগুলো থাকতে হবে। কেননা সিমেন্টের পিলার সংখ্যায় মাত্র চারটি হতে পারে, তবে সেগুলোই একটি বিশাল সুউচ্চ ভবনকে ধরে রাখতে সক্ষম।

বর্তমান যুগের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে যে, যারা সমাজ বিনির্মাণের জন্য কাজ করছে, তাদের মধ্যে সৎ ও দীনের প্রতি নিষ্ঠাবান লোকের অভাব। তারপরেও লোকচক্ষুর অন্তরালে আন্তরিকভাবে কাজ করে যাওয়া কিছু আল্লাহভীরু ও খাঁটি বান্দারা রয়েছেন যারা এ পৃথিবীতে যেন এসেছেনই জাতি সমূহকে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য, অথৈ সাগরে পড়া জাহাজকে উদ্ধারের জন্য। কিন্তু সমাজকে কলুষিত করা মানুষজন তার বিরুদ্ধে গীবত, পরনিন্দা, গুপ্তচরগিরি, কুৎসা, গুজব ইত্যাদি ছড়াতে থাকে;তার চলার পথকে কণ্টকাকীর্ণ করে ফেলে,সত্য ও ন্যায়ের পিছনে ছুটেচলাকে মন্থর করে দেয়।

তথাপি লোকচক্ষুর অন্তরালের মানুষগুলো থেমে থাকেন না,খারাপ মানুষগুলোর বাধায় শুধু তার মুখের চিন্তার বলিরেখাগুলি দীর্ঘায়িত হয়।সমাজের উন্নয়ন,ন্যায় আর সত্য প্রতিষ্ঠার ভাবনায় ডুবে থাকে তার মস্তিষ্ক।তাই তারা কোন নিরর্থক সস্তা কথা শুনতে পায় না।গীবত, পরনিন্দা, গুপ্তচরগিরি, কুৎসা, গুজব এসব শোনার মত সময় তাদের থাকে না। কারণ তাদের ব্যস্ততা কোন ছোটখাট বিষয়ে নয়, তাদের চিন্তানিবিদ্ধ থাকে অনেক বড় বড় বিষয়ে, ব্যাঙ্গের ঘ্যাঙ্গর ঘ্যাঙ্গর কিংবা কাকের কা- কা ডাক শোনার মত সময় তাদের নেই !

এমনই একজন আন্তরিক মানুষ রয়েছেন আমাদের নার্সিং ও মিডওয়াইফ অধিদপ্তরে।তিনি পরিচালকের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই সততা ও নিষ্ঠার সাথে দিন রাত নিরলসভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নার্সিং ও মিডওয়াইফারী অধিদপ্তরকে সেবামূলক প্রতিষ্ঠানে রুপান্তরের লক্ষ্যে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।নিরবে নিভৃতে সমাধান করে যাচ্ছেন নার্সদের সকল সমস্যা।করোনা মহামারীতেও তিনি ঘরে বসে নাই।করোনা যুদ্ধে কোভিড -১৯ এর সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে নার্সদের যেকোন সমস্যায় তিনি পাশে থাকছেন সর্বদা।
যাকে নিয়ে এতসন লেখা,তিনি হচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশস্থ ভ্যানগার্ড বাংলাদেশ সরকারের উপসচিব

বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিপ্তরের (প্রশাসন, শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ ) বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল হাই পিএএ স্যার।
নার্সিং সমাজ বিনির্মাণে এবং নার্সিং পেশার উন্নয়নে তার মতো সত্যনিষ্ঠ, মহানুভব ও আন্তরিক মানুষের খুবই দরকার। নার্স হিসেবে আমাদেরকেও তার সকল চলার পথকে আরও মসৃণ করা আমাদের কর্তব্য, তবেই তো আমাদের প্রফেশনের উন্নয়ন হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102