বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
করোনায় মৃত্যুবরণ করা এক যুবকের শেষ কথাগুলো গ্রাজুয়েট নার্সিং কোর্সের শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানালেন ড. মোহাম্মদ ইউনুস চিকিৎসক, নার্স সহ শীঘ্রই ২০ হাজার নিয়োগ আসছেঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী দারিদ্র ও মেধাবীদের লোনের মাধ্যমে ডিপ্লোমা নার্সিং কোর্সে অধ্যায়নের সুযোগ করোনা ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া সাময়িক স্থগিত করেছে সৌদি সরকার। রাজধানীর দুই নার্সিং শিক্ষার্থীর লেখাপড়ার দায়িত্ব নিলো সিলেট ওসমানী বিএনএ বাংলাদেশের নার্সিং শিক্ষা মান্ধাতার আমলেরঃ চট্টগ্রাম মেডিকেলের সাবেক অধ্যক্ষ সেবা নিশ্চিত করতে নার্সদের অভিযোগ সরাসরি জানাতে বললেন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বিভাগীয় পর্যায়ে আইসিইউ প্রশিক্ষণ চালু রাখায় ওসমানী বিএনএ’র কৃতজ্ঞতা কক্সবাজারে ৮৫ হাজার টাকা বেতনে চাকরির সুযোগ বিএসএমএমইউ’তে গ্রাজুয়েট নার্সিং শিক্ষার্থীদের ক্যাপিং সেরিমনি অনুষ্ঠিত

চট্টগ্রামে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার থাপ্পড়ে নার্স আহত, হ্রাস পেল শ্রবণশক্তি

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৮ জুলাই, ২০২০
  • ২৫৪৯ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক : এস এম বিপ্লব নামে এমইএস কলেজভিত্তিক সাবেক এক ছাত্রলীগ নেতার থাপ্পড়ে এক নার্সের কানের দুল উড়ে গেছে। ঘটনার আকস্মিকতায় কিছুক্ষণের জন্য বোকা বনে যাওয়া ওই নার্স পরক্ষণে বিছানার স্ট্যান্ড নিয়ে ছাত্রলীগ ওই সাবেক নেতার দিকে তেড়ে যান। পরবর্তীতে পাশ্ববর্তীদের বাধা ও অনুরোধে ওই নার্স নিজেকে শান্ত করলেও ক্ষোভে, অপমানে, ব্যক্তিত্বের আঘাতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। শুধু তাই নয়, থাপ্পড়ে ক্ষতিগ্রস্থ কানটি দিয়ে তিনি এখন কম শুনতে পান। ৩২ শতাংশ শ্রবণশক্তি হ্রাস পেয়েছে বলেও অনুসন্ধানে জানা গেছে।

বুধবার (১৫ জুলাই) সকাল ১০ টার দিকে হালিশহর প্রিন্স অব চিটাগাংয়ে অস্থায়ীভাবে গড়ে ওঠা চট্টগ্রাম আইসোলেশন সেন্টারে এই ঘটনা ঘটে।

বিলম্বে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, ঘটনার দিন দশেক আগে করোনা-পজিটিভ হয়ে উক্ত আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি হন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের প্রাক্তন সদস্য এস এম বিপ্লব। টানা চিকিৎসায় সুস্থতাবোধ করলে গত সোমবার (১৩ জুলাই) নমুনা পরীক্ষার জন্য দেন তিনি।

মঙ্গলবার বিকেলে প্রাপ্ত রিপোর্টে তার করোনা-নেগেটিভ শনাক্ত হয়। নিয়মানুযায়ী সেদিনই তার আইসোলেশন সেন্টার ছেড়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু কর্তৃপক্ষের কাছে আরও একদিন থাকার আবদার করেন বিপ্লব।

কোনও কোভিড রোগীর নেগেটিভ হওয়ার পর এক মুহূর্ত কোভিড ইউনিটে থাকার নিয়ম না থাকলেও নেগেটিভ রোগী বিপ্লবকে পজিটিভ রোগীদের সাথেই বাড়তি একদিন রাখতে বাধ্য হন কর্তৃপক্ষ। বুধবার সকাল ১০ টা থেকে ৩০ বছর বয়সী এক নার্সকে (যিনি তার সেবায় নিয়োজিত ছিলেন) উদ্দেশ্য করে বিপ্লব অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। তার দাবি, ওই নার্স তাকে ইনসুলিন দিলেও সকালের ওষুধ খেতে দেননি। ফোনে সংশ্লিষ্টদের বিষয়টি জানিয়ে এখনই ওই নার্সকে তার কাছে পাঠাতে বলেন অগ্নিশর্মা বিপ্লব।

কর্তৃপক্ষ মারমুখী বিপ্লবকে শান্ত করতে তার কাছে পাঠান ওই নার্সকে। কিন্তু যাওয়ার সাথে সাথে কোনো কিছু বুঝে উঠার আগেই বিপ্লব সজোরে থাপ্পড় বসিয়ে দেন নার্সের গালে। বিষয়টির বর্ণনা দিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী এক রোগী নাম প্রকাশ না করার শর্তে একুশে পত্রিকাক জানান, থাপ্পড়ে তার ডান কানের দুল উড়ে যায়। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবিহ্বল হয়ে পড়েন নার্স। অবশ্য পরক্ষণে বিছানার স্ট্যান্ড হাতে বিপ্লবের দিকে তেড়ে যান ওই নার্স। অনেক অনুনয় বিনয় করে আমরা ওই নার্সকে থামাই। ইত্যবসরে দুই স্বেচ্ছাসেবক এই ঘটনায় বিপ্লবকে মারতে উদ্যত হন। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষসহ সবাই মিলে পরিস্থিতি শান্ত করে বিপ্লবকে পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু একা হাসপাতাল ছাড়তে চাচ্ছিলেন না বিপ্লব। পরে ফোন করে কয়েকজন শুভার্থী ডেকে তাদের সহযোগিতায় হাসপাতাল ছাড়েন এসএম বিপ্লব। বলেন ওই প্রত্যক্ষদর্শী।

ওই নার্সের প্রকৃতপক্ষে কী অপরাধ, কেনই বা একজন নারীর উপর এমনভাবে চড়াও হলেন বিপ্লব-জানতে চাইলে কোভিড ইউনিটে চিকিৎসারত ঘটনার আরেক প্রত্যক্ষদর্শী মাছরাঙা টেলিভিশনের সিনিয়র ক্যামেরাপারসন সঞ্জীব দে বাবু জানান, আমি যতটুকু জানি, চূড়ান্ত নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসার সাথে সাথে নিয়মানুযায়ী সংশ্লিষ্ট রোগীর ফাইল রিসেপশনে চলে যায় ছাড়পত্র প্রস্তুতের জন্য। সেই নিয়মে বিপ্লবের ফাইলটাও আগেরদিন সন্ধ্যায় চলে যায়। পরদিন সকালে রাউন্ডে গিয়ে ডায়বেটিসের ওই রোগীকে যথারীতি ইনসুলিন দিয়ে আসলেও ফাইলটি বেডের কাছে না থাকায় ওষুধ খাওয়াতে পারেননি। আর তাতেই এই তুলকালাম কাণ্ড।

অন্য এক রোগী বলেন, সবার সমানে যেভাবে একজন নারীর গায়ে তিনি হাত তুললেন তা অত্যন্ত পৈশাচিক, অমানবিক এবং নিষ্ঠুর। এই ঘটনার জন্য ওই লোকের (বিপ্লব) উচ্চাভিলাষ, নেগেটিভ আসার পরও বাড়তি একদিন থাকার অন্যায় আবদার, উগ্র ও আধিপত্যবাদী মানসিকতাই দায়ি।

এদিকে এমইএস কলেজ ছাত্রলীগের একজন নেতা একুশে পত্রিকাকে বলেন, এসএম বিপ্লব এমইএস কলেজ ছাত্রলীগের কোন পদে ছিলেন না, এমনি ছাত্রনেতা। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি উচ্ছৃঙ্খল প্রকৃতির। এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে মেয়র নির্বাচন করার জন্য একবার মনোনয়ন ফরম নিয়েছিলেন বিপ্লব। কিছুদিন পরপর নানা নেতিবাচক কথা শোনা যায় তাকে নিয়ে। দলের মধ্যে টাউট বিপ্লব নামে পরিচিত তিনি।

আইসোলেশন সেন্টারটির সাথে শুরু থেকে নানাভাবে জড়িত আছেন নারীনেত্রী অ্যাডভোকেট জিনাত সোহানা চৌধুরী। তাঁর যুক্ত থাকা আইসোলেশন সেন্টারে একজন নারী বর্বরভাবে নিগৃহীত হওয়ার বিষযটাকে কীভাবে দেখছেন বা তিনি কী ব্যবস্থা নিয়েছেন জানতে চাইলে জিনাত সোহানা চৌধুরী একুশে পত্রিকাকে বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। শুনিও নি কারো কাছে। এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে চাইলে সাজ্জাত সাহেবের সাথে কথা বলুন।

জানতে চাইলে আইসোলেশন সেন্টারের প্রধান উদ্যোক্তা মো. সাজ্জাত হোসেন একুশে পত্রিকাকে বলেন, এ ঘটনায় আমরা দুঃখিত, লজ্জিত। ঘটনার সাথে সাথে আমরা সর্বোচ্চ সেবা-সুশ্রুষা দিয়ে ওই বোনটির পাশে দাঁড়িয়েছি। এখন তিনি সুস্থ ও স্বাভাবিক আছেন এবং ডিউটিতে যোগ দিয়েছেন। যেহেতু মানুষ এখানে সেবা পাচ্ছে, সুস্থ হচ্ছে তাই বিষয়টি নিয়ে আমরা অতিরঞ্জন করতে চাইনি। -বলেন সাজ্জাত।

থাপ্পড়ে ওই নার্সের কান ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে শুনতে না পাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে সাজ্জাত হোসেন বলেন, বিষয়টি আমরা সর্বোচ্চ আন্তরিকতা দিয়ে দেখছি; প্রয়োজনে যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।

আইসোলেশন সেন্টারটির আরেক উদ্যোক্তা নুরুল আজিম রনির বক্তব্য জানার চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি। প্রতিবারই তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

অভিযুক্ত এসএম বিপ্লব বলেন, আমি এখনো অসুস্থ। এ ব্যাপারে এই মুহূর্তে কিছু বলতে পারবো না বলে ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন তিনি।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শনিবার সকালে ক্ষতিগ্রস্থ কান নিয়ে চমেক হাসপাতালের চিকিৎসক সুধাংশু ব্যানার্জির শরণাপন্ন হন ওই নার্স। তার কানের ৩২ শতাংশ শ্রবণশক্তি হ্রাস পেয়েছে বলে মেডিকেল সূত্রে জানা গেছে।

কানের চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকের কাছে গিয়েছেন জানাকেও এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে চাননি ওই নার্স। তিনি বলেন, ওই লোকের মানসিক সমস্যা আছে বলে পরে জেনেছি। তাই এ ব্যাপারে আপাতত কোনো স্টেপ নিতে চাইনি। প্রয়োজন হলে সবার সহযোগিতা চাওয়া হবে বলে জানান তিনি।
source: ekushe Patrika

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102